fbq('track', 'AddToCart');

কালোজিরা তেল (Black seed oil) – ১০০ মিলি.

কালোজিরা তেল (Black seed oil) – ১০০ মিলি.

৳ 160.00 ৳ 150.00

কালোজিরার তেলে ১০০টিরও বেশি উপযোগী উপাদান আছে। এর মধ্যে প্রায় ২১ শতাংশ আমিষ, ৩৮ শতাংশ শর্করা এবং ৩৫ শতাংশ ভেষজ তেল ও চর্বি। এটি নিয়মিত সেবনে নানা ধরণের উপকারিতা পাওয়া যায়।

Qty:
Compare
Brand:

Description

কালোজিরা তেলের উপকারিতাঃ
কালোজিরার তেলে ১০০টিরও বেশি উপযোগী উপাদান আছে। এর মধ্যে প্রায় ২১ শতাংশ আমিষ, ৩৮ শতাংশ শর্করা এবং ৩৫ শতাংশ ভেষজ তেল ও চর্বি। এটি নিয়মিত সেবনে নানা ধরণের উপকারিতা পাওয়া যায়।কালোজিরা তেলের উপকারিতা ও ব্যবহার বিধি সম্পর্কে কিছু তথ্যঃ
১/ এক চা-চামচ পুদিনা পাতার রস বা কমলার রস অথবা এক কাপ রঙ চায়ের সাথে এক চা-চামচ কালোজিরার তেল মিশিয়ে দিনে তিনবার করে পান করলে দুশ্চিন্তা দূর হয় এবং মেধাবিকাশের জন্য কাজ করে ।
২/ বাতের ব্যাথায় আক্রান্ত স্থানে নিয়মিত কালো জিরার তেল মালিশ করলে বাতের ব্যাথা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।
৩/ মাথা ব্যাথা নিরাময়ে ১/২ চা-চামচ কালোজিরার তেল মাথায় ভালোভাবে লাগাতে হবে এবং এক চা চামচ কালোজিরার তেল সমপরিমাণ মধুসহ দিনে তিনবার করে ২/৩ সপ্তাহ খেতে হবে।
৪/ সর্দি সারাতে এক চা-চামচ কালোজিরার তেল সমপরিমাণ মধু বা এক কাপ রং চায়ের সাথে মিশিয়ে দৈনিক ৩ বার পান করতে হবে এবং মাথায় ও ঘাড়ে রোগ সেরে না যাওয়া পর্যন্ত মালিশ করতে হবে।
৫/ বিভিন্ন প্রকার চর্মরোগ প্রতিরোধে আক্রান্ত স্থান ধুয়ে পরিষ্কার করে তাতে মালিশ করুন। এক চা-চামচ কাঁচা হলুদের রসের সাথে সমপরিমাণ কালোজিরার তেল সমপরিমান মধু বা এক কাপ রং চায়ের সাথে দৈনিক ৩ বার করে ২/৩ সপ্তাহ পান করুন। ভালো উপকার পাওয়া যাবে ইন শা আল্লাহ।
৬/ ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রনে রাখতে প্রতিদিন সকালে সমস্ত শরীরে কালোজিরার তেল মালিশ করে সূর্যের তাপে কমপক্ষে আধাঘন্টা অবস্থান করতে হবে এবং এক চা-চামচ কালোজিরার তেল সমপরিমাণ মধুসহ প্রতি সপ্তাহে ২/৩ দিন খেলে ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণ রাখে।
৭/ কালোজিরা তেল বহুমুত্র রোগীদের রক্তের শর্করার মাত্রা কমিয়ে দেয় এবং নিম্ন রক্তচাপকে বৃদ্ধি করে ও উচ্চ রক্তচাপকে হ্রাস করে।
৮/ অর্শ রোগ নিরাময়ে এক চা-চামচ মাখন ও সমপরিমাণ তিলের তেল, এক চা-চামচ কালোজিরার তেল সহ প্রতিদিন খালি পেটে ৩/৪ সপ্তাহ খেলে উপকার পাবেন ইন শা আল্লাহ।
৯/ অনিয়মিত মাসিক রোগের ক্ষেত্রে এক কাপ কাঁচা হলুদের রস বা সমপরিমাণ আতপ চাল ধোয়া পানির সাথে এক কাপ চা-চামচ কালোজিরার তেল মিশিয়ে দৈনিক ৩বার করে নিয়মিত সেব্ন করতে হবে।
১০/ জন্ডিস বা লিভারের বিভিন্ন সমস্যার দূরীকরণে এক গ্লাস ত্রিপলার শরবতের সাথে এক চা-চামচ কালোজিরার তেল দিনে ৩ বার করে ৪/৫ সপ্তাহ পান করতে হবে।
১১/ কালোজিরার তেল রিউমেটিক এবং পিঠে ব্যাথা কমাতে বেশ সাহায্য করে।
১২/ চুল পড়া বন্ধ করতে চুলের গোড়ায় মালিশ করতে থাকুন। ইন শা আল্লাহ ভালো ফলাফল পাবেন। কালোজিরার তেল চুলের গোড়া শক্ত করে ও চুল পড়া কমায়।
১৩/ চোখের ব্যথা দূর করতে রাতে ঘুমানোর আগে চোখের উভয়পাশে ও ভুরুতে কালোজিরা তেল মালিশ করুন এবং এককাপ গাজরের রসের সাথে একমাস কালোজিরা তেল সেবন করুন।
১৪/ যৌন দুর্বলতায় কালোজিরা তেল ও অলিভ অয়েল, ৫০ গ্রাম হেলেঞ্চার রস ও ২০০ গ্রাম মধু একসঙ্গে মিশিয়ে সকালে খাবারের পর এক চামচ করে পান করুন। ইন শা আল্লাহ উপকার পাবেন।
১৫/ অ্যাসিডিটি ও গ্যাস্টিকের সমস্যায় এক কাপ দুধ ও এক টেবিল চামচ কালোজিরার তেল দৈনিক তিনবার ৫-৭ দিন সেবন করতে হবে। এতে গ্যাস্টিক কমে যাবে।
১৬/ সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে অলিভ অয়েল ও কালোজিরা তেল মিশিয়ে মুখে মেখে এক ঘণ্টা পর ধুয়ে ফেলুন।
১৭/ ফোঁড়া সারাতে কালো-জিরার তেল অতুলনীয়। ফোঁড়া পেকে গেলে তার, মাথায় কালো- জিরার তেল দিয়ে রাখলে কয়েক দিনে ব্যাথা কম ও ফোঁড়া সেরে যাবে।
১৮/ ব্রনের সমস্যায় কালো-জিরার তেলে থাকা এন্টি-মাইক্রোবিয়াল, এন্টি-ইনফালাম্যাটরি ত্বকের ব্রনের জীবনু গুলো ধ্বংস করে। এক গবেষণায় দেখা গেছে, কালো-জিরার তেল ৫৮% জীবানু ধ্বংস করে প্রথম সপ্তাহে এবং দ্বিতীয় সপ্তাহে ৩৮% জীবাণু হ্রাস পায় দ্বিতীয় সপ্তাহে।
বিঃ দ্রঃ গর্ভাবস্থায় ও দুই বছরের কম বয়সের বাচ্চাদের কালোজিরার তেল সেবন করা উচিত নয়। তবে বাহ্যিক ভাবে ব্যবহার করা যাবে।

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “কালোজিরা তেল (Black seed oil) – ১০০ মিলি.”

Your email address will not be published. Required fields are marked *

X