fbq('track', 'AddToCart');

প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ

প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ

৳ 300.00 ৳ 210.00

লেখক : আরিফ আজাদ
প্রকাশনী : গার্ডিয়ান পাবলিকেশন্স
বিষয় : আলোর পথে 
প্রথম প্রকাশ: জুন, ২০১৬
পৃষ্ঠা সংখ্যা : ১৭৬
Qty:
Compare

Description

আপাদমস্তক বোরকা দ্বারা আবৃত একটি মেয়ের সামনে বসে আছি।

মাঝখানে একটি সুন্দর টি টেবিল। টেবিলে তিনকাপ চা। চায়ের কাপ থেকে ধুয়া উড়ছে।

আমি এই মেয়ের দিকে তাকালাম। চোখ থেকে যেন বের হচ্ছে আগুনের ফুলকি।

মেয়েদের চোখ এত মোটা হয়, এত নির্দয় হয়, এত জ্বলজ্বল করে জানতামনা। এই মেয়ে যেভাবে তাকিয়ে আছে তাতে মনে হচ্ছে ভস্ম করে দিবে।

মেয়েরা ভালবাসার আগুনে ভস্ম করে বলেই জানি। কিন্তু প্রতিহিংসার আগুনে কি ভস্ম করে কে জানে। ওমেন চ্যাপ্টার কি বলে জানতে হবে।

এই মেয়ের পাশে বসা আরমান ভাইয়ের একটি বোরকার দোকান আছে নিউ মার্কেটে। ভাইজান সরাসরি দুবাই থেকে বোরকা আমদানি করে থাকেন।

আরমান ভাইকে জিজ্ঞেস করলাম, বুঝতে পারছিনা, পাশের ইনি কি ভাবি? বিয়ে করলেন কবে? জানালেন না ত কিছুই?

আরমান ভাই বললেন, আগে চা খান তারপর কথা। অনেকদিন দেখা সাক্ষাৎ নাই। কই ছিলেন?

ভাই গেরামে ছিলাম বেশ কিছুদিন। এখন গাও গেরামেই বেশী থাকি।

খুব ভাল। খুব ভাল। এদিকের খবর কি কিছু জানেন?

আমি চায়ে চুমুক দিতে দিতে বললাম, আপনি কিন্তু কথা ঘুরিয়ে দিচ্ছেন। কই নতুন বিয়া করছেন ভাবীর সাথে পরিচয় করাই দিবেন, তা না করে অন্য আলাপে চলে যাচ্ছেন বারবার। এটা কিন্তু ঠিক না ভাই।

মেয়েটি এবার চোখ রাঙিয়ে কঠিনভাবে তাকাল আমার দিকে। আমার হাত থেকে চায়ের কাপ পড়ে গেল টেবিলে।

হায় হায় করে উঠলেন আরমান ভাই। বললেন, হুজুর মানুষ আপনি, মাইয়ালোক দেখলে হুশ ঠিক থাকেনা বুঝি!!!

আমি কাপড়ে লেগে থাকা চা ধোওয়ার জন্য বেসিনের দিকে এগুতে লাগলাম। আরমান ভাই পেছনে এসে খপ করে হাত ধরে টান দিলেন। জিজ্ঞাসু চোখে তাকালাম উনার দিকে ।

কানে কানে যা কইলেন , হুশ হারানোর মত অবস্থা আমার।

তিনি বললেন, এই মেয়ে আসলে মেয়ে না। পুরুষ মানুষ। ইনি হইলেন…

ইনি কি???

ইনি একজন বিজ্ঞানমনস্ক নাস্তিক । এলেমদার আদমি।

কিন্তু বোরকা পরেছেন কেনো? উনারা ত বোরকা বিরোধী বলেই জানি।

আরে বোকা, আরিফ আজাদ নামক এক লোক নাকি প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ নামে কি একটা বই লিখেছে।

লিখেছে ত কি হইছে? ওখানে ত বোরকা কিংবা ও তে ওড়না এসব নিয়ে আমার জানামত কিছু লেখা নাই।

আরে তা না। ওই বইতে নাস্তিকদের বিজ্ঞান ফিজ্ঞান নিয়ে উল্টা পাল্টা কথার জবাব দেয়া হয়েছে। আগে নাস্তিকরা প্রশ্ন করত, বিজ্ঞানের কথা বলে ধর্মের বিরোধিতা করত এখন সিস্টেম উলটে গেছে। এখন ধার্মিকরা প্রশ্ন করছে নাস্তিকরা বেকায়দায় পড়েছে।

তাই নাকি?

এখন বেচারারা চেলা চামুন্ডাদের প্রশ্নের উত্তর দিতে না পেরে দলে দলে বোরকা পরছে।

তাহলে ত আপনার বোরকা বেচাকেনা ভালই হবে আগামিতে। আগামি সপ্তাহে চায়নিজ খাওয়াবেন কিন্তু!

আমার কাপড় ধোওয়া শেষ হল। বেসিন থেকে কুলি করে এসে বাকি চা শেষ করে বেরিয়ে যাব।

যাওয়ার সময় বোরকা পরা নাস্তিক ভাইয়ের দিকে তাকিয়ে বললাম, যাই ভাবি, দাওয়াত কিন্তু বাকি রইল।

উনি অগ্নিদৃষ্টি নিক্ষেপ করে আরেকবার ভস্ম করে দিতে চাইলেন।

আমি বেরিয়ে মিশে গেলাম ঢাকার বিশাল জনস্রোতে। (১০০%কাল্পনিক)

-সাইমুম সাদী

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ”

Your email address will not be published. Required fields are marked *

X