কালোজিরা তেলের উপকারিতা

কালোজিরার তেলে ১০০টিরও বেশি উপযোগী উপাদান আছে। এর মধ্যে প্রায় ২১ শতাংশ আমিষ, ৩৮ শতাংশ শর্করা এবং ৩৫ শতাংশ ভেষজ তেল ও চর্বি। এটি নিয়মিত সেবনে নানা ধরণের উপকারিতা পাওয়া যায়।কালোজিরা তেলের উপকারিতা ও ব্যবহার বিধি সম্পর্কে কিছু তথ্যঃ

১/ এক চা-চামচ পুদিনা পাতার রস বা কমলার রস অথবা এক কাপ রঙ চায়ের সাথে এক চা-চামচ কালোজিরার তেল মিশিয়ে দিনে তিনবার করে পান করলে দুশ্চিন্তা দূর হয় এবং মেধাবিকাশের জন্য কাজ করে ।

২/ বাতের ব্যাথায় আক্রান্ত স্থানে নিয়মিত কালো জিরার তেল মালিশ করলে বাতের ব্যাথা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

৩/ মাথা ব্যাথা নিরাময়ে ১/২ চা-চামচ কালোজিরার তেল মাথায় ভালোভাবে লাগাতে হবে এবং এক চা চামচ কালোজিরার তেল সমপরিমাণ মধুসহ দিনে তিনবার করে ২/৩ সপ্তাহ খেতে হবে।

৪/ সর্দি সারাতে এক চা-চামচ কালোজিরার তেল সমপরিমাণ মধু বা এক কাপ রং চায়ের সাথে মিশিয়ে দৈনিক ৩ বার পান করতে হবে এবং মাথায় ও ঘাড়ে রোগ সেরে না যাওয়া পর্যন্ত মালিশ করতে হবে।

৫/ বিভিন্ন প্রকার চর্মরোগ প্রতিরোধে আক্রান্ত স্থান ধুয়ে পরিষ্কার করে তাতে মালিশ করুন। এক চা-চামচ কাঁচা হলুদের রসের সাথে সমপরিমাণ কালোজিরার তেল সমপরিমান মধু বা এক কাপ রং চায়ের সাথে দৈনিক ৩ বার করে ২/৩ সপ্তাহ পান করুন। ভালো উপকার পাওয়া যাবে ইন শা আল্লাহ।

৬/ ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রনে রাখতে প্রতিদিন সকালে সমস্ত শরীরে কালোজিরার তেল মালিশ করে সূর্যের তাপে কমপক্ষে আধাঘন্টা অবস্থান করতে হবে এবং এক চা-চামচ কালোজিরার তেল সমপরিমাণ মধুসহ প্রতি সপ্তাহে ২/৩ দিন খেলে ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণ রাখে।

৭/ কালোজিরা তেল বহুমুত্র রোগীদের রক্তের শর্করার মাত্রা কমিয়ে দেয় এবং নিম্ন রক্তচাপকে বৃদ্ধি করে ও উচ্চ রক্তচাপকে হ্রাস করে।

৮/ অর্শ রোগ নিরাময়ে এক চা-চামচ মাখন ও সমপরিমাণ তিলের তেল, এক চা-চামচ কালোজিরার তেল সহ প্রতিদিন খালি পেটে ৩/৪ সপ্তাহ খেলে উপকার পাবেন ইন শা আল্লাহ।

৯/ অনিয়মিত মাসিক রোগের ক্ষেত্রে এক কাপ কাঁচা হলুদের রস বা সমপরিমাণ আতপ চাল ধোয়া পানির সাথে এক কাপ চা-চামচ কালোজিরার তেল মিশিয়ে দৈনিক ৩বার করে নিয়মিত সেব্ন করতে হবে।

১০/ জন্ডিস বা লিভারের বিভিন্ন সমস্যার দূরীকরণে এক গ্লাস ত্রিপলার শরবতের সাথে এক চা-চামচ কালোজিরার তেল দিনে ৩ বার করে ৪/৫ সপ্তাহ পান করতে হবে।

১১/ কালোজিরার তেল রিউমেটিক এবং পিঠে ব্যাথা কমাতে বেশ সাহায্য করে।

১২/ চুল পড়া বন্ধ করতে চুলের গোড়ায় মালিশ করতে থাকুন। ইন শা আল্লাহ ভালো ফলাফল পাবেন। কালোজিরার তেল চুলের গোড়া শক্ত করে ও চুল পড়া কমায়।

১৩/ চোখের ব্যথা দূর করতে রাতে ঘুমানোর আগে চোখের উভয়পাশে ও ভুরুতে কালোজিরা তেল মালিশ করুন এবং এককাপ গাজরের রসের সাথে একমাস কালোজিরা তেল সেবন করুন।

১৪/ যৌন দুর্বলতায় কালোজিরা তেল ও অলিভ অয়েল, ৫০ গ্রাম হেলেঞ্চার রস ও ২০০ গ্রাম মধু একসঙ্গে মিশিয়ে সকালে খাবারের পর এক চামচ করে পান করুন। ইন শা আল্লাহ উপকার পাবেন।

১৫/ অ্যাসিডিটি ও গ্যাস্টিকের সমস্যায় এক কাপ দুধ ও এক টেবিল চামচ কালোজিরার তেল দৈনিক তিনবার ৫-৭ দিন সেবন করতে হবে। এতে গ্যাস্টিক কমে যাবে।

১৬/ সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে অলিভ অয়েল ও কালোজিরা তেল মিশিয়ে মুখে মেখে এক ঘণ্টা পর ধুয়ে ফেলুন।

১৭/ ফোঁড়া সারাতে কালো-জিরার তেল অতুলনীয়। ফোঁড়া পেকে গেলে তার, মাথায় কালো- জিরার তেল দিয়ে রাখলে কয়েক দিনে ব্যাথা কম ও ফোঁড়া সেরে যাবে।

১৮/ ব্রনের সমস্যায় কালো-জিরার তেলে থাকা এন্টি-মাইক্রোবিয়াল, এন্টি-ইনফালাম্যাটরি ত্বকের ব্রনের জীবনু গুলো ধ্বংস করে। এক গবেষণায় দেখা গেছে, কালো-জিরার তেল ৫৮% জীবানু ধ্বংস করে প্রথম সপ্তাহে এবং দ্বিতীয় সপ্তাহে ৩৮% জীবাণু হ্রাস পায় দ্বিতীয় সপ্তাহে।বিঃ দ্রঃ গর্ভাবস্থায় ও দুই বছরের কম বয়সের বাচ্চা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *